• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ২ শ্রাবণ ১৪৩১

Advertise your products here

  1. সারাদেশ

বাকেরগঞ্জে এমপি হাফিজ মল্লিকের প্রচেষ্টায় দোকান উচ্ছেদ ও সড়ক নির্মাণের অচলাবস্থার সমাধান


দৈনিক পুনরুত্থান ; প্রকাশিত: সোমবার, ০১ জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ০১:৫৩ পিএম
বাকেরগঞ্জে এমপি হাফিজ মল্লিকের প্রচেষ্টায় দোকান উচ্ছেদ ও সড়ক নির্মাণের অচলাবস্থার সমাধান
ফাইল ফুটেজ

বরিশালের বাকেরগঞ্জ উপজেলার পশ্চিম চরাদী ও বরিশালের চরকাউয়া ইউনিয়নের সঙ্গে সড়ক যোগাযোগ স্থাপনে ১ কোটি ৫৬ লাখ টাকার সেতু নির্মিত হলেও অ্যাপ্রোচ সড়কের কাজ দীর্ঘদিন ধরে বন্ধ রয়েছে।

অ্যাপ্রোচ সড়ক নির্মাণের দোহাই দিয়ে বাকেরগঞ্জ প্রান্তে থাকা ১১টি দোকান উচ্ছেদ করার অপচেষ্টা চালায় একটি কুচক্রিমহল।অবশেষে বরিশাল-৬ (বাকেরগঞ্জ) আসনের সংসদ সদস্য মেজর জেনারেল(অবঃ) আলহাজ্ব আবদুল হাফিজ মল্লিকের হস্তক্ষেপে দোকান উচ্ছেদ ও এ্যাপ্রোজ সড়ক নির্মাণের অচলাবস্থার সমাধান হতে চলেছে। এজন্য স্থানীয় জনসাধারণ ও ব্যবসায়ীরা এমপির নিকট কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন।

শুক্রবার বিকেলে মেজর জেনারেল (অবঃ) আলহাজ্ব আবদুল হাফিজ মল্লিক এমপিপশ্চিম চরামদ্দি ও চরকাউয়ার মধ্যবর্তী সেতুটির দুই পাশের সড়ক এবং বাকেরগঞ্জ প্রান্তে থাকা মাসজিদসহ ১১টি দোকান পরিদর্শন করেন। এরপর তিনি পশ্চিম চরামদ্দি মাদ্রাসায় বাকেরগঞ্জের চরামদ্দি ইউনিয়ন এবং বরিশাল সদর উপজেলার চরকাউয়া ইউনিয়নের জনসাধারণ, জনপ্রতিনিধি ও সুশীল সমাজের উপস্থিতিতে উদ্ভূত পরিস্থিতিতে সমাধান খোঁজার লক্ষ্য বৈঠক করেন।বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি কেএম ইশমাম, উপজেলা ভাইস-চেয়ারম্যান ড.আবদুস সালাম মল্লিক, মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান জাহানারা বেগম, বরিশাল সদরের উপজেলা প্রকৌশলী, চরামদ্দি ইউপি চেয়ারম্যান শাহাবুদ্দিন খোকন, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি জাহাঙ্গীর মাস্টার, ইউপি সদস্য আবুল কালাম আজাদ, সমাজসেবক এনায়েত হোসেন হাওলাদার, বাকেরগঞ্জ রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি দানিসুর রহমান লিমন, সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম খান আলিম প্রমূখ।

স্থানীয় সংসদ সদস্য মেজর জেনারেল (অবঃ) আলহাজ্ব আবদুল হাফিজ মল্লিক সকলের নিকট মতামত জানতে চাইলে দোকানদার তপন চন্দ্র শীল, আঃ লতিফ হাওলাদার, মোঃ শাহজাহান মোল্লা, মোঃ নজরুল ইসলাম জানান, সেতুটি দিয়ে যান চলাচলের জন্য বাকেরগঞ্জ প্রান্তে এ্যাপ্রোজ সড়ক নির্মাণের জন্য পর্যাপ্ত জায়গা ফাঁকা থাকলেও একই গ্রামের মৃত আব্দুল হাসেম খানের পুত্র রোকনুজ্জামান খান সুমন সেতুটির পার্শ্ববর্তী তাদের জমিতে মার্কেট নির্মাণ করে ভাড়া প্রদান এবং জমির দাম বাড়াতে তাদের ১১ টি দোকান উচ্ছেদের পরিকল্পনা করছেন।

তিনি তার মামাতো বোন মাদারীপুরে কর্মরত এডিসি তানিয়া আক্তারের প্রভাব খাঁটিয়ে বরিশাল জেলা প্রশাসনকে ভুল বুঝিয়ে তাদের দোকানগুলো উচ্ছেদের অপচেষ্টা চালাচ্ছে।স্থানীয় সমাজসেবক এনায়েত হোসেন হাওলাদার জানান, সেতুটি সাবেক মেয়র মরহুম শওকত হোসেন হিরনের করার কথা ছিল। তিনি মৃত্যুবরণ করায় পানি সম্পদ মন্ত্রী কর্নেল (অবঃ) জাহিদ শামীম এমপির প্রচেষ্টায় সেতুটি করে দিয়েছেন।

সেতুটির সাথে প্রশস্থ রাস্তা যেমন দরকার,  তেমনি দোকানগুলো রাখা দরকার।ইউপি সদস্য আবুল কালাম আজাদ বলেন,এলাকার উন্নয়নের স্বার্থে রাস্তা হোক। প্রয়োজনে ১২-১৬ ফুট প্রশস্ত রাস্তা করে দোকানগুলো রাখা হোক।চরামদ্দি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি জাহাঙ্গীর মাস্টার বলেন, জনস্বার্থ বিবেচনায় রেখে রাস্তা কম প্রশস্ত করে দোকানগুলো উচ্ছেদ না করে রাখা হোক।চরমদ্দি ইউপি চেয়ারম্যান শাহাবুদ্দিন খোকন বলেন, পশ্চিম চরমদ্দি ও চরকাউয়া সেতুটির বাকেরগঞ্জ প্রান্তে ২৪ ফুট রাস্তা প্রশস্ত করলেও ওপাড়ে মাত্র ৮ ফুট প্রশস্ত রাস্তা করা যাবে। সুতরাং এক প্রান্তের রাস্তা এত প্রশস্ত না করে সরকারি জমিতে বসবাসরত দোকানগুলো উচ্ছেদ না করে তিনি দোকানগুলো রাখার দাবি জানান।

বরিশাল সদর উপজেলা প্রকৌশলী বলেন, সেতুটির বাকেরগঞ্জের পশ্চিম চরামদ্দি প্রান্তে এখন ১২ ফুট রাস্তা নির্মাণ করা হবে এবং রাস্তার উভয় পাশে ৩ ফুট করে ৬ ফুট জায়গা ফাঁকা থাকবে। সবমিলিয়ে এখন রাস্তা ১৮ ফুট হলেও ভবিষ্যতে আরও বাড়বে।উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি কেএম ইসলাম বলেন, হালট, খাল, বিল সরকারি সম্পত্তি। যে কেউ সরকারি খাস জমি বরাদ্দ নিতে পারে। তবে হালটের সম্পত্তি ছেড়ে দিতে হবে।

সংসদ সদস্য মেজর জেনারেল (অবঃ)আলহাজ্ব আবদুল হাফিজ মল্লিক বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নীতি ছিল গরিবদের মুখে হাসি ফোটানো। জনস্বার্থে রাস্তা বাড়াতে হবে। তবে গরিব ব্যবসায়ীদের দিকেও দৃষ্টি দিতে হবে, তারাও যেন দোকান রেখে ব্যবসা করতে পারেন।বৈঠকে উপস্থিত উপজেলা প্রশাসন, দোকানদার এবং জনপ্রতিনিধিদের মতামতের ভিত্তিতে সকলেই একটি সিদ্ধান্ত উপনীত হয় যে, আপাতত ১৮ ফুট রাস্তা করে পশ্চিম চরমদ্দি বাজারের ১১ টি দোকান থাকবে।

ভবিষ্যতে যদি রাস্তা প্রশস্ত করতে হয় তখন দোকানদাররা রাস্তা নির্মাণের জন্য প্রয়োজনীয় জায়গা ছেড়ে দিবে। সে ক্ষেত্রে স্থানীয় দোকানদাররা প্রশাসনের নিকট লিখিত অঙ্গিকারনানা প্রদান করবেন।বাকেররগঞ্জ উপজেলার পশ্চিম চরামদ্দি টু বরিশাল সদরের চরকাউয়া ইউনিয়নের মধ্যকার সেতুটির দুই পাশের এ্যাপ্রোজ স

দৈনিক পুনরুত্থান / স্টাফ রিপোর্টার

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন