• ঢাকা
  • রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪, ৭ বৈশাখ ১৪৩১

Advertise your products here

  1. রাজধানী

জাপান ভারতের জন্য যে কারণে গুরুত্বপূর্ণ মাতারবাড়ি বন্দর


দৈনিক পুনরুত্থান ; প্রকাশিত: শুক্রবার, ২৪ ফেরুয়ারী, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ, ০৮:১৫ পিএম
জাপান-ভারতের জন্য যে কারণে গুরুত্বপূর্ণ মাতারবাড়ি বন্দর!
ফাইল ফুটেজ

অঞ্চলের একটি গুরুত্বপূর্ণ দেশ বাংলাদেশ ইন্দো-প্যাসিফিক। যেখানে জাপান ব্যাপকভাবে এটি এমন একটি দেশ বিনিয়োগ করছে। দেশের অনেক প্রকল্পের মাতারবাড়ি বন্দরসহ সঙ্গে টোকিও জড়িত। টোকিও গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশকে ১৯৭২ সালের ১০ ফেব্রুয়ারি স্বীকৃতি দেওয়ার পর থেকে মধ্যে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক বিদ্যমান জাপান ও বাংলাদেশের।

তার স্বাধীনতা নতুন দেশটি ঘোষণা করার মধ্যে দ্বিপাক্ষিক পরপরই দুদেশের সম্পর্ক অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ। এ-সংক্রান্ত একটি নিবন্ধ পত্রিকায় ছাপা হয় ২২ ফেব্রুয়ারি ‘জাপান ফরোয়ার্ড’। প্রতিবেশী এলাকায়, উল্লেখযোগ্য বিনিয়োগ জাপান উত্তর-পূর্ব ভারতে করেছে। কৌশলগত অবস্থানের কারণে প্রকৃতপক্ষে অঞ্চলটির জাপানই একমাত্র দেশ যাকে ব্যাপকভাবে বিনিয়োগের উত্তর-পূর্ব ভারতে অনুমতি দেওয়া হয়েছে। উত্তর-পূর্ব ভারত, চীন, ভুটান, বাংলাদেশ এবং মিয়ানমারের সঙ্গে সীমান্ত ভাগ করে নেয়।

জাপানি বৈদেশিক নীতির এসব কারণগুলোএকটি স্বাক্ষরমূলক উদ্যোগ, দৃষ্টিভঙ্গি ডিজাইনে ভূমিকা পালন করেছে ‘মুক্ত এবং উন্মুক্ত ইন্দো-প্যাসিফিক’ । আততায়ীর গুলিতে নিহত শিনজো আবে এ পরিকল্পনা যদিও জাপানের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী করেছিলেন। এ নীতি ধারাবাহিক প্রশাসন দ্বারা মুলত তখন থেকে অব্যাহত রয়েছে। একই অংশ হিসেবে, অঞ্চলে একটি নিয়ম-ভিত্তিক জাপান ইন্দো-প্যাসিফিক আদেশ করার জন্য কাজ করছে বজায় রাখা নিশ্চিত।

আরও পড়ুন>> সত্যিই কি বিয়ে করলেন সালমান মুক্তাদির?
জাপানের বিনিয়োগ বাংলাদেশে:

বাংলাদেশের সবচেয়ে ঘনিষ্ঠ উন্নয়ন জাপান জন্মলগ্ন থেকেই সহযোগীদের মধ্যে চীনকে ছাড়িড়ে গেছে একটি হলেও সাম্প্রতিক সময়ে। ‘বেল্ট অ্যান্ড রোড ইনিশিয়েটিভ’ (বিআরআই) বিশেষ করে বেইজিংয়ের চালু হওয়ার পর, যেটিতে স্বাক্ষর করেছে বাংলাদেশও।

জাপান ইন্টারন্যাশনাল কো-অপারেশন এজেন্সি (জাইকা) ২০১৮ সালের জুন মাসে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের সঙ্গে ইয়েনের ঋণ চুক্তি স্বাক্ষর করে ২শ’ ৬৫ কোটি জাপানি। বাংলাদেশের মাতারবাড়ি বন্দরের তাদের উদ্দেশ্য ছিল উন্নয়নের ব্যবস্থা করা। সহায়তার অংশ হিসেবে দেশের উন্নয়ন টোকিও ‘ঢাকা মাস র‌্যাপিড় ট্রান্সপোর্ট’ নেটওয়ার্কের সাথেও জড়িত।

অন্যান্য খবর>> দুই সহযোগীসহ ইউটিউবার প্রত্যয় হিরনকে গ্রেফতার করেছে ডিবি!
অর্থনৈতিক অগ্রগতি বাংলাদেশের:

বাংলাদেশ দ্রুত অর্থনৈতিক উন্নয়নে এগিয়ে যাচ্ছে। নিম্ন মধ্যম আয়ের দেশটি ২০১৫ সালে দেশের মর্যাদা অর্জন করেছে এবং জাতিসংঘের স্বল্পোন্নত দেশটি ২০২৬ সালের মধ্যে দেশের তালিকা থেকে মনোনীত হয়েছে বেরিয়ে যাওয়ার জন্য।

বন্দর প্রকল্প ভারতের বাংলাদেশের মাতারবাড়ি উত্তর-পূর্ব রাজ্যগুলো ছাড়াও স্থলবেষ্টিত হিমালয় দেশ সহায়ক হতে পারে নেপাল এবং ভুটানের জন্যও। ভারতের স্বাধীনতার সময় এই অঞ্চলগুলো ১৯৪৭ সালে এবং ১পূর্ব পাকিস্তান ৯৭১ সালে প্রথম এবং সময় স্থলবেষ্টিত হয়ে পড়ে এখন বাংলাদেশ সৃষ্টির।

মিয়ানমারের সিতওয়ে বন্দরের কাছাকাছি মাতারবাড়ি বন্দরটিও। এবং জ্বালানি খাতে ভারতের মিয়ানমারে প্রাকৃতিক উল্লেখযোগ্য বিনিয়োগ রয়েছে।

 

পুনরুত্থান/সালেম/সাকিব/এসআর

দৈনিক পুনরুত্থান / স্টাফ রিপোর্টার

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন