• ঢাকা
  • শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

Advertise your products here

  1. জাতীয়

এ দেশে একজন মানুষও ভূমিহীন বা ঠিকানাবিহীন থাকবে না : প্রধানমন্ত্রী


দৈনিক পুনরুত্থান ; প্রকাশিত: রবিবার, ১৫ জানুয়ারী, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ, ০৬:১০ পিএম
এ-দেশে-একজন-মানুষও-ভূমিহীন-বা-ঠিকানাবিহীন-থাকবে-না-প্রধানমন্ত্রী
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

সমাজের বিত্তবানদের প্রতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিঃস্ব ও সহায়সম্বলহীনদের এবং হতদরিদ্র পাশে দাঁড়াতে আহ্বান জানিয়ে বলেন, প্রতিটি গৃহহীন ও ভূমিহীন মানুষের বাসস্থান নিশ্চিত করতে তাঁর সরকার কাজ করে যাচ্ছে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে তাঁর কার্যালয়ে আজ বিএবি- এর একটি প্রতিনিধি দল সাক্ষাৎ করতে এলে একথা বলেন তিনি। শেখ হাসিনা বলেন, ‘থাকবে না ভূমিহীন বা ঠিকানা-বিহীন বাংলাদেশে একজন মানুষও। এটাই লক্ষ্য আমাদের।’ প্রধানমন্ত্রীর ডেপুটি প্রেস সচিব কে বৈঠকের পর এম শাখাওয়াত মুন ব্রিফ করেন সাংবাদিকদের। তিনি জানান, আশ্রায়ন প্রকল্পের আওতায় প্রতিটি গৃহহীন ও ভূমিহীন মানুষের জন্য ৩৬টি ব্যাংক মোট ১১৩ দশমিক ২৫ কোটি টাকা বাড়ি নির্মাণে অনুদান দিয়েছে।

আরও পড়ুন>> বাংলাদেশির ৪৫৯ বাড়ি দুবাইয়ে : হাইকোর্টের নির্দেশ অনুসন্ধানের

দেশের ভূমিহীন ও গৃহহীনদের জন্য এগিয়ে আসার জন্য সমাজের ধনীক শ্রেণীর প্রতি বাড়ি নির্মাণ করে দেয়ায় আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘শুধু সরকারই নয়, বরং নিয়ে যাব উন্নয়নের পথে এগিয়ে আমরা সবাই মিলে দেশকে।’ তিনি আরো বলেন, ঘর ও জমি পাওয়ার পর মান পরিবর্তন হয়েছে জীবনযাত্রার অনেক ভূমিহীন ও গৃহহীন মানুষের। জমি ও ঘর দেয়া হয়েছে এদের অধিকাংশকেই ইতোমধ্যে। এখন বাকী আছে অল্প কয়েকজন। বাসস্থান নির্মাণ তাদের জন্যও করা হচ্ছে।প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘যারা ঘর পেয়েছেন এই আশ্রায়ন প্রকল্প থেকে, তাদের মনের সন্তুষ্টি ও মুখের হাসি থেকে হতে পারে না বড় আর কোন প্রাপ্তি।’

তিনি আরো বলেন, আশ্রায়ন প্রকল্পে অনেকেই যারা পেয়েছেন দুই ডেসিমেল জমি- তারা সেখানে হাঁসমুরগি পালন, শাকসজবি চাষ, দোকান ও কুটির শিল্প গড়ে তুলেছেন। এভাবে তারা ভালভাবে খুঁজে পেয়েছেন বেঁচে থাকার পথ। তাদের জীবনযাত্রার উন্নতি হচ্ছে এই জমি ও ঘর পাওয়ার ফলে।’ বিএবি ও ব্যাংকারদের অনুদানের অর্থ প্রদান করায় ধন্যবাদ জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আপনাদেরকে আমার বলার প্রয়োজন হয় না অনুদান প্রদানের কথা। আপনারা যে কোন সংকটক ও দুর্যোগ কালে স্বতস্ফূর্তভাবেই এগিয়ে আসেন।’

অন্যান্য খবর>> বাংলাবান্ধা সীমান্ত দিয়ে নেপাল থেকে সুতা আসবে বাংলাদেশে

তাঁর সরকারের পদক্ষেপের কথা তুলে বেসরকারি খাতে ব্যাংক খুলতে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘ বর্তমানে ৩ লাখ স্নাতক সরকারি ব্যাংকগুলোতে কাজ করছে, অনেক বড় ব্যাপার এটা একটি।’ আরো শেখ হাসিনা বলেন, দেশ এখন মনুষ্য সৃষ্ট ও সকল প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবিলা করে এগিয়ে যাচ্ছে সমৃদ্ধির পথে। বিশ্ব অর্থনীতির ওপর ইউক্রেন-রাশিয়া যুদ্ধের প্রভাব ও কোভিড-১৯ মহামারির অভিঘাতের প্রভাবের কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, ‘বড় ধরনের সমস্যার মধ্যে নেই অন্যান্য দেশের মতো আমরা। কাটিয়ে উঠছি আমরা আমাদের সমস্যাগুলো।’ বিএবি চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম মজুমদারও সভায় অন্যান্যের মাঝে বক্তব্য রাখেন।

 

পুনরুত্থান/সালেম/সাকিব/এসআর

দৈনিক পুনরুত্থান / স্টাফ রিপোর্টার

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন